বুধবার, ২৫ মে ২০২২, ০৬:৩৯ পূর্বাহ্ন Bengali Bengali English English
শিরোনাম :
রংপুর পীরগাছায় সেচ পাম্পের কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে পানি থেকে বঞ্চিত অনেক কৃষক কিশোরগঞ্জ সদর-হোসেনপুর উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন ঘিরে উৎসবের আমেজ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা জাতীয় ফুটবল টুর্নামেন্টের খেলায় দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত দুই আগামীকাল ডোমারে আসতেছেন ইসলামী বক্তা আবু ত্বহা মুহাম্মদ আদনান শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে শিশু মেলার উদ্বোধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত  আগামী ১ লা জুন আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হচ্ছে ভারত – বাংলাদেশ মিতালি এক্সপ্রেস নীলফামারী রাস্তাগুলোতে শুকানো হচ্ছে ‌ধান ও‌ খর। সাংবাদিক জাহাঙ্গীর আলমের মৃত্যুতে বিএমএসএফ’র গভীর শোক ও সমবেদনা  নীলফামারীতে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত ডিমলায় তথ্য অফিসের উদ্যোগে দু’দিন ব্যাপী শিশু মেলা শুরু
নোটিশ :
Wellcome to our website...
শেরপুরে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড
আপডেট : বুধবার, ১১ মে, ২০২২, ৩:৫৭ অপরাহ্ণ

শেরপুরে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

  • মিজানুর রহমান মিলন, শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরে যৌতুকের দাবিতে নির্যাতনে স্ত্রীকে হত্যার চাঞ্চল্যকর এক মামলায় ফুরকান আলী (৩৬) নামে এক ব্যক্তিকে মৃত্যুদন্ড দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (১০ মে) দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান আসামির অনুপস্থিতিতে ওই রায় ঘোষণা করেন। ফুরকান আলী শ্রীবরদী উপজেলার রানীশিমুল ইউনিয়নের চেল্লাকান্দি এলাকার ময়দান আলীর ছেলে ও এক সন্তানের জনক। তবে, মামলার পর থেকেই পলাতক রয়েছে ফুরকান। একইসাথে মামলার অপর ৩ আসামি ফুরকানের বাবা ময়দান আলী (৫৯), মা ফুলেতন বেগম (৪৯) ও আত্নীয় সওদাগর আলী (৬১) কে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুালের পিপি এ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু জানান, ২০১১ সালের ২ জুলাই রাতে স্ত্রী এক সন্তানের জননী ও শ্রীবরদী উপজেলার বড়গেরামারা এলাকার আব্দুল জব্বারের মেয়ে জহুরা বেগমকে (২৩) যৌতুকের দাবি আদায়ে ব্যর্থ হয়ে মারপিট ও শ্বাসরোধে হত্যার পর তার লাশ নিজ ঘরের দর্ণায় ফাঁসিতে ঝুঁলিয়ে রাখে পাষন্ড স্বামী ফুরকান আলী। ওই ঘটনায় পর দিন ফুরকান আলী, তার বাবা-মা ও ২ আত্নীয়সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে শ্রীবরদী থানায় মামলা দায়ের করেন জহুরা বেগমের বড় ভাই ফজলুল হক। পরবর্তীতে তদন্ত শেষে একই বছরের ২০ নভেম্বর ফুরকানের আত্নীয় আজিজুর রহমান ব্যতীত ৪ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন শ্রীবরদী থানার এসআই নুরুল আমিন খান। পরবর্তীতে একমাত্র ময়দান আলী হাজির হয়ে বিচারের মুখোমুখি হলেও অপর ৩ আসামিই পলাতক থাকে। ফলে মামলার বিচার নিষ্পত্তিতে সৃষ্টি হয় দীর্ঘসূত্রিতা। মামলায় চূড়ান্ত পর্যায়ে বাদী, চিকিৎসক ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য প্রমাণে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১ (ক) ধারায় আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ফুরকান আলীকে ওই দন্ড দেওয়া হয়। এছাড়া একই আইনে সহায়তার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় অপরাপর আসামিদের খালাস দেওয়া হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫
১৬১৭১৮১৯২০২১২২
২৩২৪২৫২৬২৭২৮২৯
৩০৩১