সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ১১:৫৫ অপরাহ্ন Bengali Bengali English English
শিরোনাম :
ঝিনাইগাতীতে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করলেন বিভাগীয় কমিশনার গ্লোবাল টেলিভিশনের সংবাদ কর্মীদের উপর হামলার প্রতিবাদে ঝিনাইগাতীতে মানববন্ধন  ঝিনাইগাতীতে আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শন করেন উপজেলা চেয়ারম্যান নাইম নীলফামারীতে পুলিশ সুপার কাপে চ্যাম্পিয়ন ‘পুলিশ হাসপাতাল দল। নীলফামারীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ষষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রের মৃত্যু। রাজশাহীতে সাংবাদিকদের ৮ দফা দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মানববন্ধন ঝিনাইগাতীতে বন্যার পানিতে ডুবে নিহত-২ দূর্গম চরাঞ্চলে জন শুমারীর কাজ করছেন জোনাল অফিসার মেহেদী  নীলফামারীতে ভূমি অধিগ্রহণের চেক পেলেন ১৭ব্যক্তি। নীলফামারীতে ১১ বছর পর খোকশাবাড়ি ইউপিতে ভোট উৎসব।
নোটিশ :
Wellcome to our website...
রমেকে নানা অনিয়ম! পদোন্নতির ঝলকে অফিস সহায়ক হলেন প্রশাসনিক কর্মকর্তা।
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৬ জানুয়ারি, ২০২২, ৪:০৭ অপরাহ্ণ

গোলাম আজম, রংপুর প্রতিনিধি:

 

রংপুরে স্বাস্থ্যের বিভাগীয় পরিচালকের কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ফজলুল হক। রংপুর মেডিকেল কলেজের অফিস সহায়ক পদে চাকরি নেন তিনি।

 

সরকারি চাকরি বিধি ভঙ্গ করে এই চেয়ারে বসলেও এর দায় পদোন্নতি বোর্ডের উপর চাপিয়ে তিনি বলছেন, ‘পদোন্নতি নিজে নেননি, দিয়েছে পদোন্নতি বোর্ড।’

 

সার্ভিস বুক অনুযায়ী, ১৯৯৭ সালের ২৭ মে রংপুর মেডিকেল কলেজে অফিস সহায়ক পদে যোগ দেন ফজলুল হক। ২০০৪ সালের ১০ জুন অফিস এসিস্ট্যান্ট কাম কম্পিউটার অপারেটর, ২০০৯ সালের ১ নভেম্বর স্টোরকিপার, ২০১২ সালের ৪ নভেম্বর হেড অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসাবে পদোন্নতি পান।

 

নন-মেডিকেল কর্মচারী বিধিমালা অনুযায়ী আর কোনো পদন্নোতির সুযোগ না থাকলেও ২০১৫ সালের ২৯ ডিসেম্বর একই প্রতিষ্ঠানের সচিবের চেয়ারে বসেন চলতি দায়িত্ব পেয়ে। এসময় কলেজটিতে নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে।

 

এরপর ২০১৯ সালের ৩ মার্চ অ্যাডমিনিস্টেটিভ অফিসার হিসাবে রংপুরের বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তার কার্যালয়ে বদলি হন।

 

পদোন্নতিতে বিধিমালা লঙ্ঘণ হয়ে থাকলে এর দায় তার নয়, বরং দায় পদোন্নতি বোর্ডের বলে মন্তব্য করেছেন ফজলুল হক। তিনি বলেন, ‘পদোন্নতি নিজে নেননি, দিয়েছে পদোন্নতি বোর্ড।’

 

এ বিষয়ে কথা বলতে নানাভাবে যোগাযোগের চেষ্টা করেও বিভাগীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. জাকিউল ইসলামকে পাওয়া যায়নি।

 

তবে এই বিষয়টি অবগত হওয়ার পর মন্ত্রণালয়ে অবগত করেছেন বলে দাবি করে পুরো বিষয়টির তদন্ত এবং দোষী ব্যক্তির শাস্তি হওয়া উচিত বলে জানিয়েছেন রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নূরন্নবী লাইজু।

 

সম্প্রতি ২০০৮ সালের স্বাস্থ্য বিভাগীয় নন-মেডিকেল নিয়োগ বিধিমালা অনুযায়ী ১০ম গ্রেডের প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসাবে পদোন্নতির জন্য ১১তম গ্রেডের যোগ্য ফিডার কর্মচারীদের যে তালিকা করা হয়েছে, সেখানে ফজলুল হকের পদোন্নতি বিধি বহির্ভূত বলে মন্তব্য করা হয়েছে। উল্লেখ করা হয়েছে তার ২০২০ সালের এসিআর না থাকার কথাও।

 

এটি নিয়ে পুরো ধাপপাড়ায় হাস্যরসে পরিণত হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০